হে বাঙ্গালী! আমি লজ্জিত !!!!!

আমি সব সময় বাংলাদেশ নিয়ে গর্ব করি। হয়তো সবার মতো লাল সবুজ পতাকা উড়িয়ে গর্ব করিনা। ভাল লাগা ভালবাসা নিজের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখী।

ইদানিং কেন জানি নিজেকে হিংস্র মনে হয়। মনে হয় কাছে পেলেই চামড়া তুলে দেই আবার ভাবি আমি কেন এসব করতে যাব। আমার কি?

আজ চরম একটা শিক্ষা পেলাম সেই সাথে পেলাম লজ্জা। আমার মনে হলো বাংলাদেশ জন্ম নিয়েছি শুধু লজ্জা পাওয়ার জন্য।
লেখাটা এখানে পোষ্ট করাটা ঠিক হচ্ছে কি না বুঝতে পারছি না।

আজ দুপুরে আমার পাশের দোকানদার মাত্তেও (ইতালীয়ান) সংগে আডডা দিচ্ছি এমন সময় আমাকে ফেইসবুকের একটা ছবি দেখিয়ে বলে এটা কোন দেশে করছে। আমি সরল মনে বললাম আমার দেশের ছেলেরা করছে। এরপর ওর কথা শুনে আমি লজ্জা পেয়ে গেলাম।

ও আমাকে বলে দেখ আর্জিণ্টিনা কিন্বা ব্রাজিলের সাপোর্টার আমাদের দেশেও আছে। মেসি, নেইমারের সাপোর্টার ও অনেক। আমরা কিন্তু কোন সাপোর্টারকে ছোট করে কথা বলি না। কোন সাপোর্টারকে ব্যাঙ্গ করে পোষ্ট করি না। গত বিশ্বকাপে দেখলাম বাংলাদের এক কৃষক জার্মানের পতাকা তৈরি করছে সম্পত্তি বিক্রি করে কিন্তু তোর দেশ ভাল ক্রিকেট খেলে কই কখনও তো শুনলাম না কেউ সম্পত্তি বিক্রি করে একটা বাংলাদের পতাকা বানিয়েছে। অথচ তোরা অন্যকে নিয়ে নিজেদের মধ্যে কাদা ছড়াছরি করিস আবাব মাঝে মাঝে শরীরেও হাত তুলিস কেন?
তোদের লাভটা কোথায়। সাপোর্ট করিস ভাল কথা একজন আর একজনকে ছোট করে কেন? আর্জিণ্টিনা বিশ্বকাপ খেলবে সবচেয়ে বেশি খুশি ব্রাজিল। তোরা এমন কেন?

আমার কাছে সে মুহূর্তে কোন উত্তর ছিল না।

আজকের ম্যাচের আগে নিশ্চিত হওয়া গিয়েছিল যে, এমন পরিস্থিতিতে ব্রাজিল যদি চিলিকে হারিয়ে দেয়, তাহলে বিষয়টা আর্জেন্টিনার জন্য কিছুটা সহায়ক হয়ে উঠতে পারে। সরাসরি বিশ্বকাপে খেলতে না পারলেও প্লে-অফ খেলার সুযোগ পেতে পারে মেসির দল। সেটা মাথায় রেখেই ব্রাজিল তারকা প্রতিশ্রুতি দিলেন, ‘লিওনেল মেসি এবং তার দল আর্জেন্টিনাকে নিয়েই আগামী বিশ্বকাপ খেলতে যেতে চাই।

’স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড স্প্যানিশ পত্রিকা স্পোর্টের বরাতে নেইমারের বক্তব্য দিয়ে রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল, ‘নেইমার বুঝতে পারছেন, চিলিকে অবশ্যই হারাতে হবে। নিজেদের সমর্থকদের সামনে ইমেজ ধরে রাখার বিষয়ই নয় শুধু, বন্ধু লিওনেল মেসিকেও এ ক্ষেত্রে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে চান তিনি।’

তবে শেষ পর্যন্ত বন্ধু মেসির হয়ে কথা বলা নেইমার কথা রাখলেন। তাকে নিয়েই বিশ্বকাপর পথে ব্রাজিল। জয় হোক বন্ধুত্বের। জয় হোক ফুটবলের।

Advertisements