লবিতে নেমে কোনায় গিয়ে প্রায় অন্ধকার একটা জায়গায় গিয়ে বসলেন রুবেল হোসেন। সকালের নাশতা খেতে যাওয়ার সময় বা বাসে ওঠার সময় তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজের মুখে যে হাসিটা দেখা গেল, সেটাকেও মনে হলো কৃত্রিম। শফিউল ইসলাম, মেহেদী হাসান—কারও মধ্যেই নেই চনমনে ভাব।

প্রথম টেস্টের লজ্জাজনক হারের জন্য বোলার-ব্যাটসম্যান সবাইকেই দায়ী করেছেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। তবে প্রথম ইনিংসের বোলিংয়ের জন্য বোলারদের রীতিমতো শূলে চড়িয়েছেন তিনি। বোলিংয়ের সমালোচনা করতে করতে মুশফিক পার হয়ে গেছেন পচেফস্ট্রুম টেস্ট। বলে দিয়েছেন, সামগ্রিকভাবেই উন্নতি হয়নি বাংলাদেশের বোলারদের। উন্নতির দৌড়ে তারা ব্যাটসম্যানদের চেয়ে অনেক পিছিয়ে।
অধিনায়কের এমন মন্তব্যে স্বাভাবিকভাবেই কষ্টে আছেন বোলাররা। তাঁদের কেউ এ নিয়ে কথা বলতে রাজি না হলেও কষ্টের ছাপ চোখে-মুখে পরিষ্কার। দলের সিনিয়র ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহর কথায়ও কিছু ধারণা পাওয়া গেল সে সম্পর্কে। তবে তাঁর দাবি, মুশফিক হয়তো অন্য কিছু বোঝাতে গিয়েই হঠাৎ এতটা আক্রমণাত্মক হয়ে গেছেন। বোলাররা একেবারেই কিছু পারেন না, এটা বলা তাঁর উদ্দেশ্য ছিল না।
আজ সকালে ব্লুমফন্টেইন রওনা দেওয়ার আগে মাহমুদউল্লাহও পাশে দাঁড়াতে চাইলেন বোলারদের, ‘ওদের রাবাদা, মরকেলের কথা যদি বলেন, ওরা অনেক ম্যাচ খেলেছে। অভিজ্ঞতায় ওরা অনেক এগিয়ে। তবে হ্যাঁ, আমাদের স্পিন বোলিং আরেকটু ভালো হওয়া উচিত ছিল। আসলে ছোট ছোট অনেক কিছুই আছে। ব্যাটিং, বোলিং, ফিল্ডিং—তিনটি বিষয়েই কাজ করার আছে আমাদের।’
মাহমুদউল্লাহর বিশ্বাস, পচেফস্ট্রুমের হতাশা কাটিয়ে ব্লুমফন্টেইন টেস্টেই সিরিজে ফিরবে বাংলাদেশ। তার জন্য প্রয়োজন শুধু নিজেদের সামর্থ্যটা কাজে লাগানো, যেটাতে তাঁরা পুরোপুরি ব্যর্থ প্রথম টেস্টে।

 

Advertisements